Sunday , 17 February 2019

জাজিরায় সভাপতির মেয়ের নিয়োগ না হওয়ায় নতুন শিক্ষকের যোগদানে বাঁধা

শরীয়তপুর২৪ রিপোর্টার : শরীয়তপুরের জাজিরা হাট মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে যোগদান করতে গিয়ে বাঁধার সম্মুখীন হয়েছে হয়েছেন সহকারি শিক্ষক মাহফুজুর রহমান সুমন। এক পর্যায়ে তাকে স্কুল ক‌ক্ষে অবরুদ্ধ ক‌রে রা‌খেন ওই বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির লোকজন। পরে পুলিশ গিয়ে সুমনকে উদ্ধার করে। বুধবার (২৫ এপ্রিল) সকা‌লে এ ঘটনা ঘটে। অভিযোগ রয়েছে, ঐ পদে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতির মেয়ের নিয়োগ না হওয়ায় নিয়োগ পাওয়া শিক্ষক সুমনকে যোগদান করতে দিতে ইচ্ছুক নন সভাপতি শামসুল হক বেপারি। বিদ্যালয় ও স্থানীয় সূ‌ত্রে জানা যায়, জাজিরা হাট মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টিতে সহকারী শিক্ষক (প্রাক-প্রাথমিক) পদ শূন্য হলে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস ঐ পদের জন্য একজন সহকারী শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। তখন মাহফুজুর রহমান সুমন, শারমিন জাহান মিলি ও নাসরিন আক্তার এই শূন্য পদের জন্য আবেদন করেন। এদের মধ্যে শারমিন জাহান মিলি বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি শামসুল হক বেপারীর মেয়ে। শিক্ষা অফিস আবেদনপত্র যাচাই করে বিদ্যালয়টিতে যোগদানের জন্য সিনিয়র হিসেবে মাহফুজুর রহমান সুমনকে অনুমতি পত্র প্রদান করে। কিন্তু গত ১৭ এপ্রিল মাহফুজুর রহমান সুমন বিদ্যালয়ে যোগদান করতে গেলে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক গিয়াস উদ্দিন যোগদানপত্রটি গ্রহন না করে কাজের অজুহাতে বিদ্যালয় থেকে বের হয়ে যান। পরে সারাদিন বসে থেকেও শিক্ষককে না পেয়ে সুমন চলে যান। এরপর যোগদানের জন্য আরো তিন বার বিদ্যালয়ে গেলেও যোগদানপত্র গ্রহণ করেননি ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক। অাজ বুধবার সকা‌লে যোগদান করার জন্য সুমন পুনরায় বিদ্যালয়ে গেলে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির লোকজন তা‌কে বিদ্যালয় কক্ষে অবরুদ্ধ ক‌রে রাখে। পরে জাজিরা থানা পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে। শিক্ষক সুম‌নের বড় ভাই মাসুদুর রহমান ব‌লেন, সি‌নিয়র হি‌সে‌বে শিক্ষা অফিস সুমনকে জাজিরা হাট মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়‌ে যোগদা‌নের অনুমতি দেয়। কিন্তু ঐ বিদ্যাল‌য়ের ম্যা‌নে‌জিং ক‌মি‌টির সভাপ‌তির মে‌য়ে যোগদান কর‌তে না পারায় সুমনকে যোগদান কর‌তে দি‌বে না তারা। বি‌ভিন্ন ধর‌নের হুম‌কি ও বাঁধা দেয়া হচ্ছে সুমন‌কে। তাই যোগদান পে‌তে সুমন উপ‌জেলা শিক্ষা অফিস ও উপ‌জেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর দরখাস্ত দি‌য়ে‌ছিল। আজ বুধবার উপ‌জেলা শিক্ষা অফিস ও উপ‌জেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অনুম‌তি নি‌য়ে যোগদান কর‌তে গেলে সুমনকে অবরুদ্ধ ক‌রে রাখা হয়। ‌বিদ্যাল‌য়ের ম্যা‌নে‌জিং ক‌মি‌টির সভাপ‌তি শামসুল হক বেপারী ব‌লেন, সুমনের কাছ থে‌কে আমি না‌কি ২০ হাজার টাকা চাই‌ছি। ও আমার বিরু‌দ্ধে উপ‌জেলা শিক্ষা অফিস ও উপ‌জেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবর অভি‌যোগ ক‌রে‌ছে। যোগদা‌নের আগেই যদি অভি‌যোগ ক‌রে, তাহ‌লে যোগদা‌নের প‌রে সুমন আমার কথা মান‌বে না। তাই যোগদান কর‌তে দি‌চ্ছি না। এম‌পি আস‌লে এ বিষয় নি‌য়ে কথা হ‌বে। জা‌জিরা উপ‌জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. হা‌ফিজুর রহমান ব‌লেন, সকল নিয়ম মেনেই সুমনকে ঐ স্কুলে যোগদানের আদেশ দেয়া হ‌য়ে‌ছে। কিন্তু সুম‌নের যোগদা‌নে সমস্যা হচ্ছে। এ ব্যাপা‌রে সুমন আমার কা‌ছে লিখিত অভি‌যোগ ক‌রে‌ছে। জা‌জিরা উপ‌জেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রা‌হেলা রহমত উল্লাহ ব‌লেন, এ ব্যাপা‌রে এক‌টি অভি‌যোগ পত্র পে‌য়ে‌ছি। সুমন‌কে আজ (বুধবার) বিদ্যাল‌য়ে যোগদান কর‌তে ব‌লে‌ছিলাম। কিন্তু শুনলাম সুমন‌কে বিদ্যাল‌য়ের ভিতর অবরুদ্ধ ক‌রে রাখা হ‌য়ে‌ছে। তা‌কে পু‌লিশ উদ্ধার ক‌রে‌ছে। তি‌নি য‌দি লি‌খিত অ‌ভি‌যোগ ক‌রেন অামরা ব্যবস্থা নি‌ব। শরীয়তপুর২৪/জাজিরা/অপরাধ/শিক্ষা/২৫ এপ্রিল, ২০১৮ খ্রি:


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*