Sunday , 17 February 2019

ভেদরগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধা ও তার পরিবারের সদস্যদের রড দিয়ে পিটিয়ে জখম

শরীয়তপুর২৪ রিপোর্ট ॥ শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে এক মুক্তিযোদ্ধা ও তার পরিবারের ৩ সদস্যকে রড দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার (২৮ মে) সকালে উপজেলার মহিষার ইউনিয়নের সাজনপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের ভেদরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় কবুল ছৈয়াল নামে একজনকে আটক করেছে ভেদরগঞ্জ থানা পুলিশ।
আহতরা হলেন, সাজনপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা নুর মোহাম্মদ ছৈয়াল (৬৫), তার স্ত্রী রাজিয়া বেগম (৫০), পুত্রবধু সীমা আক্তার (৩০) ও নাতি জাহিদ ছৈয়াল (১৯)।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ভেদরগঞ্জ উপজেলার মহিষার ইউনিয়নের সাজনপুর গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা নুর মোহাম্মদ ছৈয়াল সঙ্গে আবুল কালাম ছৈয়ালের ৯০ শতক জমি নিয়ে ৮ বছর যাবত বিরোধ চলে আসছে। ওই জমি নিয়ে মামলা হলে আদালত মুক্তিযোদ্ধা নুর মোহাম্মদ ছৈয়ালেরর পক্ষে রায় দেন। কিন্তু সোমবার সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে প্রতিপক্ষ আবুল কালাম ছৈয়াল তার লোকজন নিয়ে মুক্তিযোদ্ধা নুর মোহাম্মদ ছৈয়ালের বাড়িতে ঢুকে হামলা চালায়। এতে নুর মোহাম্মদ ছৈয়াল (৬৫), তার স্ত্রী রিজিয়া বেগম (৫০), সিমা আক্তার (২২) এবং নাতি জাহিদুল ইসলাম (১৯) আহত হয়। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। সংবাদ পেয়ে ভেদরগঞ্জ থানা পুলিশ এলাকায় গিয়ে কবুল ছৈয়াল নামে একজনকে আটক করে। অন্য হামলাকারীরা এলাকা ছেড়ে পালিয়ে যায়।
মুক্তিযোদ্ধা ও তার পরিবারের উপর হামলা খবর পেয়ে ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাব্বির আহম্মেদ হাসপাতালে ছুটে যান। তিনি মুক্তিযোদ্ধার সু-চিকিৎসা নিশ্চিত করতে ডাক্তারদের নির্দেশ দেন। এ সময় যুদ্ধাকালীন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল মান্নান রাড়িসহ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের নেতৃবৃন্দ এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবী করেন।
আহত মুক্তিযোদ্ধা নূর মোহাম্মদ ছৈয়াল বলেন, আমি সকালে মামলার তারিখে শরীয়তপুরের যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। এমন সময় আবুল কালাম ছৈয়ালের নেতৃত্বে হারুন ছৈয়াল, কাবুল ছৈয়াল, দুলাল ছৈয়াল, নূরুল ইসলাম ছৈয়াল, কাজল বেগমসহ অপরিচিত আরো ৪/৫জন লোক বাড়িতে ঢুকে অর্তকিত হামলা চালায়। তাদের সঙ্গে থাকা মরিচের গুড়া আর বালু আমার চোখে ফিকে। এরপর রড দিয়ে এলাপাথাড়ি মারতে থাকে। এ সময় আমি রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে লুটিয়ে পড়ি। আমার স্ত্রী এগিয়ে আসলে তাকেও বেদম মারপিট শুরু করে। আমর পুত্রবধু, নাতি সবাইকে রড দিয়ে পিটিয়ে জখম করে তারা। এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা পলিয়ে যায়।
ভেদরগঞ্জ থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) মেহেদী হাসান জানান, দীর্ঘদিন যাবত দুই পরিবারের মধ্যে জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। সকালে প্রতিপক্ষের হামলায় মুক্তিযোদ্ধা নূর মোহাম্মদ ছৈয়াল ও তার পরিবারের সদস্যরা আহত হয়েছেন। পুলিশ এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে একজনকে আটক করেছে। এ ঘটনায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। অপরাধিদের আইনের আওতায় আনতে আমরা কাজ শুরু করেছি।
শরীয়তপুর২৪/ ভেদরগঞ্জ/অপরাধ/মুক্তিযুদ্ধ/২৮ মে, ২০১৮ খ্রি:


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*