হাইকোর্ট বঙ্গবন্ধু ভাস্কর্য এর বিরুদ্ধে আইনী পদক্ষেপের নির্দেশ দিয়েছেন

হাইকোর্ট বঙ্গবন্ধু ভাস্কর্য এর বিরুদ্ধে আইনী পদক্ষেপের নির্দেশ দিয়েছেন

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্যকে যারা প্রতিমা তৈরির বিরোধিতা করেছে এবং ভাস্কর্যটিকে বিকৃত করেছে তাদের শাস্তি দেওয়ার জন্য কর্তৃপক্ষকে আইনী পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

আদালত ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক এবং বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের খতিবকে ভাস্কর্য, মুরাল এবং প্রতিকৃতির গুরুত্ব সম্পর্কে জনসচেতনতা সৃষ্টির ব্যবস্থা গ্রহণ এবং তাদের সম্পর্কে যে কোনও বিভ্রান্তি দূর করতে সহায়তা করারও নির্দেশ দিয়েছেন।

মঙ্গলবার বিচারপতি জেবিএম হাসান ও বিচারপতি মোঃ খায়রুল আলম জাতির পিতার মূর্তি, মুরাল এবং প্রতিকৃতি সংরক্ষণে পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে একটি রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি শেষে মঙ্গলবার এই আদেশ জারি করেন।

আইনজীবী শাহ মনজুরুল হক ও নাহিদ সুলতানা জুঠি রিট আবেদনকারীর পক্ষে যুক্তি দেখিয়েছেন, এবং অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন রাষ্ট্রের পক্ষে ছিলেন।

আদালত জিজ্ঞাসা করেছিল, বঙ্গবন্ধুর প্রতিমার মর্যাদা রক্ষা ও সুরক্ষার প্রয়াসে স্বার্থান্বেষী ও অপরাধীদের দণ্ডিত করার জন্য কেন আদেশ জারি করা হবে না। এটি কর্তৃপক্ষের পদক্ষেপ গ্রহণে নিষ্ক্রিয়তা কেন আইন লঙ্ঘন বলে গণ্য হবে না বলেও জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল।

স্বরাষ্ট্রসচিব, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক, পুলি*শ প্রধান ও ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালককে এই রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আইনজীবী মনজুরুল হক সাংবাদিকদের বলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়কে ভন্ডদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্র দ্রোহ মামলা সহ আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ইসলামপন্থীরা ১৩ নভেম্বর ঢাকার গেন্ডারিয়ায় ‘তৌহিদি জনতা ঐক্য পরিষদ’ ব্যানারে একটি সমাবেশে বঙ্গবন্ধুর মূর্তি নির্মাণে আপত্তি জানায়।

মামুনুল হক, যিনি বাংলাদেশ খেলাফত যুবলীগ নেতৃত্ব দিচ্ছেন, এবং উগ্র ইসলামী সংগঠন হিফাজত-ই-ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব, একইদিন রাজধানীর বিএমএ মিলনায়তনে একটি পৃথক অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর মূর্তি নির্মাণের বিরোধিতা করেছিলেন।

২৭শে নভেম্বর, হেফাজতে ইসলামের প্রধান জুনায়েদ বাবুনগরী হুমকি দিয়েছিলেন যে “যে দলই মূর্তি তৈরি করুক না কেন, তারা তা ভেঙ্গে ফেলবে”

ইসলামপন্থি নেতাদের বক্তব্যের বিরুদ্ধে দেশব্যাপী বিক্ষোভের মধ্যে শুক্রবার গভীর রাতে বঙ্গবন্ধুর একটি নির্মাণাধীন মূর্তি ভাঙচুর করা হয়। 

রবিবার সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী উত্তম লাহিড়ী হাইকোর্টে এই রিট আবেদনটি করেন। পরে আইনজীবী সুলতানা এদিন বিচারপতি হাসান ও বিচারপতি খায়রুলের ভার্চুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চের সামনে এটি উপস্থাপন করেন।

পরে পরিপূরক আবেদনের জন্য বিধি শর্তাদি সংশোধন করা হয়। সংশোধিত আপিলের প্রাথমিক শুনানি শেষে মঙ্গলবার আদালত এ আদেশ জারি করেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2020 Shariatpur24.Com
Desing & Developed BY BDCLOUDSERVICES.COM